জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করা

Rate this post

ভূমিকাঃ

আমরা এখান থেকে আলোচনা করব কিভাবে আপনি জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করবেন সে ব্যাপারে আমরা আপনাদের মাঝে তুলে ধরব আপনারা সহজে যেন জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করতে পারেনl

NID নাম্বার ও জন্মতারিখ দিয়ে জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করে যে কোন ভোটার তথ্য দেখতে পারেন।

অনলাইনে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য অনুসন্ধান করার সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া এই লিখনের মাধ্যমে সহজ ভাবে দেখানো  হয়েছে।

জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করাঃ

 

অনলাইনে করে  ভোটার আইডি কার্ডের সত্যতা যাচাই করতে পারবেন।

ফেইক আইডি কার্ড ব্যবহার করে কেউ পরিচয় গোপন করে থাকলে ,কারো ভোটার তথ্য দেখতে চাইলে খুব সহজে জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধানের মাধ্যমে দেখতে পারবেন।

সরকারি, বেসরকারি বা ব্যক্তিগত কাজের ক্ষেত্রে ভোটার আইডি কার্ড অনুসন্ধান করার প্রয়োজন হয়ে থাকে।

জাতীয় পরিচয়পত্রে একজন ব্যক্তি সম্পর্কে প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দেয়া থেকে। এই ভোটার তথ্যের মাধ্যমে ব্যক্তির আসল পরিচয় জানা যায়।

এখন ভোটার তথ্য অনুসন্ধান করতে নির্বাচন কমিশন অফিসে যেতে হয় না। অনলাইনের মাধ্যমে ঘরে বসেই এনআইডি কার্ড অনুসন্ধান করা যায়।

এখন ডিজিটাল যুগ তাই সব কিছু ঘরে বসেই করতে পারবেনl

জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করার নিয়ম:

জাতীয় পরিচয় পত্রের তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য ভিজিট করুন Bangladesh NID Application System ওয়েবসাইট যে NID Card যাচাই করতে চান সেটির এনআইডি নাম্বার, জন্ম তারিখ লিখে সার্চ করুন।

সাবমিট করার আগে সিকিউরিটি ক্যাপচা পূরণ করতে হয়।

NID নাম্বার ও জন্ম তারিখ সঠিক হলে এবং এই জাতীয় পরিচয় পত্র বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন ভোটার আইডি ডাটাবেজে সংরক্ষিত থাকলে আপনি অনুসন্ধান করার সাথে সাথে এনআইডির ব্যক্তি সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য দেখতে পাবেন।

যদি অনুসন্ধানে কোন তথ্য না দেখায় তা হলে বুঝে নিতে হবে জাতীয় পরিচয়পত্রে কিছু problem আছে।

জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করার উপায়:

যে কোন জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করার কয়েটি উপায় রয়েছে।

অনলাইনে খুব সহজে অনুসন্ধান করার জন্য নির্বাচন কমিশন nid system, ভূমি মন্ত্রণালয়ের নাগরিক সেবা এবং অনলাইন জিডি অ্যাপ এগুলোর যে কোনটি ব্যবহার করা যেতে পারে।

এই প্লাটফর্ম গুলো ব্যবহার করে শুধু মাত্র NID নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়েই তথ্য অনুসন্ধান করা যায়। এ সকল জাতীয় পরিচয়পত্র অনুসরণ করার উপায় বিভিন্নভাবে আলোচনা করা হয়ে থাকেl

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন NID Application System ব্যবহার করে অনলাইনে ঘরে বসে এনআইডি কার্ডের তথ্য অনুসন্ধান করার নিয়ম দেখানো হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করার পুরো প্রক্রিয়াটি কয়েকটি ধাপে ভাগ করা হয়েছে। ছোট ছোট ধাপ গুলো অনুসরণ করে আপনি যে কোন আইডি কার্ড যাচাই বাছাই করতে পারবেন।

NID Application System প্রবেশ:

এনআইডি অ্যাপ্লিকেশন সিস্টেম হলো জাতীয় পরিচয়পত্র এবং নাগরিক তথ্য সরকারি ওয়েবসাইট।

জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করার জন্য https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/claim-account এই লিঙ্কে প্রবেশ করে NID Number, Date of Birth এবং একটি সিকিউরিটি টেক্সট ফিল্ড পূরণ করে সাবমিট করুন।

এই website টি মাঝে মাঝে অনেক ট্রাফিকের কারণে ডাউন থাকে যার ফলে অনেক সময় সঠিক লিঙ্ক হওয়া সত্ত্বেও প্রবেশ করা যায় না।

উপরের লিঙ্কে প্রবেশের চেষ্টা করে ঢুকতে না পারলে কিছুক্ষণ পর আবার চেষ্টা করবে। সবচেয়ে ভালো হয় যেসময় সচরাচর মানুষ অনলাইনে থাকেনা বা তুলনা  কম থাকে তখন কোন প্রকার সমস্যা হবে না।

আইডি নাম্বার ও জন্ম তারিখ যাচাই:

ভোটার তথ্য অনুসন্ধান পেজে প্রবেশ করার পর আপনি ৩টি ইনপুট ফিল্ড দেখতে পাবেন।

১ম ইনপুট ফিল্ডে জাতীয় পরিচয় পত্রের নাম্বার, ২য় ঘরে জন্মতারিখ দিয়ে ফরম পূরণ করতে হবে।

সবশেষ সিকিউরিটি ক্যাপচা পূরণ করে তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য সাবমিট বাটন চাপুন।

জাতীয় পরিচয় পত্রের ফিল্ডে ১০ সংখ্যার nid card নাম্বার অথবা ১৭ সংখ্যার nid নাম্বার দিতে হবে।

জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার যদি ১৩ সংখ্যার হয় তবে সেটি ১৭ সংখ্যায় রূপান্তর করে নিতে হবে। স্মার্ট এনআইডি কার্ডের নাম্বার থেকে পুরাতন আইডি নাম্বার (১৭ সংখ্যা) বের করার নিয়ম দেখে নিন।

এ সম্পর্কে আপনারা ভালোভাবে জেনে নিবেনl

জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করা
জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করা

আইডি কার্ডের ঠিকানা যাচাই:

আইডি কার্ডের নাম্বার এবং জন্ম তারিখ সঠিক হলে সঠিক ঠিকানা বাছাই করতে বলা হবে।

এই ঠিকানা যাচাই করার ধাপে জাতীয় পরিচয় পত্রের ঠিকানা অনুসন্ধান করতে পারবেন। কারণ এখানে ভুল ঠিকানা দেয়া হলে সিস্টেম এটি ধরে ফেলবে।

ঠিকানা যাচাই করার জন্য প্রয়োজন হবে

  • বিভাগ
  • জেলা
  • উপজেলাভোটার আইডি কার্ডে যদি বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা ভিন্ন ভিন্ন হয় তা হলে সেটি সঠিক ভাবে পূরণ করতে হবে।বর্তমান ঠিকানার স্থানে স্থায়ী অথবা স্থায়ী ঠিকানার জায়গায় বর্তমান ঠিকানা দিলে ভুল তথ্য হিসেবে গণ্য করবে।আর যদি বর্তমান ঠিকানা এবং স্থায়ী ঠিকানা একই হয় তা হলে উভয় ঠিকানা একই রকম বাছাই করে দিতে হবে।

    মোবাইল নাম্বার ভেরিফিকেশন:

    জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধানের এই ধাপে মোবাইল নাম্বার ভেরিফিকেশন করত হবে। ভোটার নিবন্ধন হবার সময় যে মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করা হয়েছিলো সেই নাম্বারের কিছু অংশ দেখতে পাবেন।

    মোবাইল নাম্বারটি সচল হলে বাড়তে পাঠান বাটনে চাপুন। আর যদি মোবাইল নাম্বারটি না থাকে তাহলে সেটি পরিবর্তন করে আরেকটি নাম্বার যুক্ত করতে পারবেন।

    মোবাইলে ৬ সংখ্যার ওটিপি ভেরিফিকেশন কোড চলে আসলে সেটি যাচাইকরন ঘরে বসিয়ে মোবাইল নাম্বার ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করতে হবে।

    মোবাইলে OTP কোড আসতে মাঝে মাঝে কিছুটা সময় বেশি লাগতে পারে। তাই কোড আসার জন্য কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হবে।

    নেটওয়ার্ক সমস্যার কারণেও ভেরিফিকেশন কোড দেড়িতে আসতে পারে।

    QR কোড স্ক্যান ও ফেইস ভেরিফিকেশন:

    ফেইস ভেরিফিকেশন করার জন্য একটি স্মার্ট ফোন প্রয়োজন হবে। মোবাইল নাম্বার সফলভাবে যাচাই করা হয়ে গেলে এনআইডি সাইটে একটি QR code প্রদর্শিত হবে।

    এই কোড স্ক্যান করার জন্য এন্ড্রয়েড ফোনে প্লে স্টোর থেকে NID Wallet app নামিয়ে নিতে হবে।

    NID wallet অ্যাপ ওপেন করে ওয়েবসাইটে দেখানো QR code স্ক্যান করুন। তারপর আইডি কার্ডের ব্যক্তির চেহারা মোবাইলের সামনে আনতে হবে।

    চোখের পলক ফেলে এবং ডানে-বামে তাকালে অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয় ভাবে ব্যক্তি সনাক্ত করে আইডি কার্ডের প্রোফাইল পেজে নিয়ে যাবে।

    এই পুরো প্রক্রিয়াটি যদি মোবাইল দিয়ে করে থাকেন তা হলে QR কোড ধাপে কোন বার কড বা কিউআর কোড দেখতে পাবেন না।

    তবে সরাসরি এনাইডি ওয়ালেট অ্যাপটি আপনার মোবাইলে ওপেন হয়ে যাবে। ঠিক একই নিয়মে ফেইস ভেরিফিকেশন করে ড্যাশবোর্ডে প্রবেশ করুন।

    ভোটার তথ্য দেখুন:

    জাতীয় পরিচয়পত্র তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য আইডি কার্ডের ড্যাশবোর্ডের প্রবেশ করে ব্যক্তিগত সকল তথ্য দেখতে পাবেন।

    প্রোফাইলে ব্যক্তির নাম, পিতা-মাতার নাম, জন্ম নিবন্ধন নাম্বার সহ প্রয়োজনীয় সকল কিছুই এখানে পাবেন।

    ভোটার তথ্য অনুসন্ধান করে যার আইডি কার্ড তার শিক্ষাগত যোজ্ঞতা, পেশা, ধর্ম, বৈবাহিক স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন।

    তাছাড়া ব্যক্তির জন্ম স্থানের ঠিকানা এই ব্যক্তিগত তথ্য অপশনে পেয়ে যাবেন।

    NID wallet অ্যাপ ওপেন করে ওয়েবসাইটে দেখানো QR code স্ক্যান করুন। তারপর আইডি কার্ডের ব্যক্তির চেহারা মোবাইলের সামনে আনতে হবে।

    চোখের পলক ফেলে এবং ডানে-বামে তাকালে অ্যাপটি স্বয়ংক্রিয় ভাবে ব্যক্তি সনাক্ত করে আইডি কার্ডের প্রোফাইল পেজে নিয়ে যাবে।

    যদি মোবাইল দিয়ে করে থাকেন তা হলে QR কোড ধাপে কোন বার কড বা কিউআর কোড দেখতে পাবেন না।

    তবে সরাসরি এনাইডি ওয়ালেট অ্যাপটি আপনার মোবাইলে ওপেন হয়ে যাবে। ঠিক একই নিয়মে ফেইস ভেরিফিকেশন করে ড্যাশবোর্ডে প্রবেশ করুন।

    জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করা

    ভোটার তথ্য দেখুন:

    জাতীয় পরিচয়পত্র তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য আইডি কার্ডের ড্যাশবোর্ডের প্রবেশ করে ব্যক্তিগত সকল তথ্য দেখতে পাবেন।

    প্রোফাইলে ব্যক্তির নাম, পিতা-মাতার নাম, জন্ম নিবন্ধন নাম্বার সহ প্রয়োজনীয় সকল কিছুই এখানে পাবেন।

    ভোটার তথ্য অনুসন্ধান করে যার আইডি কার্ড তার শিক্ষাগত যোজ্ঞতা, পেশা, ধর্ম, বৈবাহিক স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন।

    তাছাড়া ব্যক্তির জন্ম স্থানের ঠিকানা এই ব্যক্তিগত তথ্য অপশনে পেয়ে যাবেন।

    একটি ভোটার আইডি কার্ডের ড্যাশবোর্ড দেখতে কেমন হবে তা দেখানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

    আমার নিজের আইডি কার্ডের প্রফাইলের ছবি এবং নাম পরিবর্তন করে মিস্টার বিন বানিয়ে দেয়া হয়েছে।

    আপনি যার জাতীয় পরিচয় পত্র তথ্য অনুসন্ধান করবেন তার সকল তথ্য মিলিয়ে দেখতে পারেন সব কিছু সঠিক আছে কিনা।

    অন্যান্য এবং ঠিকানা অপশনে ঐ আইডি কার্ড সম্পর্কে আরো বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ইনফরমেশন দেখতে পাবেন।

    এখন চাইলে এনআইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

    মোবাইলের মাধ্যমে ভোটার আইডি অনুসন্ধান:

    হাতে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ভোটার আইডি কার্ডের তথ্য অনুসন্ধান করা যায়।

    মোবাইলে SMS পাঠানোর মাধ্যমে এবং অনলাইন GD অ্যাপলিকেশন ব্যাবহার করেও জাতীয় পরিচয়পত্র অনুসন্ধান করা যায়।

    SMS এর মাধ্যমে আইডি কার্ডের তথ্য অনুসন্ধান করার জন্য মোবাইলের মেসেজ অপশনে চলে যান এবং টাইপ করুন NID<space>NID No<space>dd-mm-yyyy এটি পাঠিয়ে দিতে হবে 105 এই নাম্বারে।

    105 নাম্বার থেকে ফিরতি মেসেজ দিয়ে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার জানিয়ে দিবে। এভাবে মেসেজের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই করা যায়।

    FAQS:

    জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করে কি কি জানা যাবে?:

    জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করে আইডি কার্ডের ব্যক্তির নাম, পিতা-মাতার নাম, শিক্ষাগত যোজ্ঞতা, ধর্ম, পেশা এমনকি জন্ম নিবন্ধন নাম্বার পর্যন্ত দেখতে পাবেন।

    NID Application System এ একজন নাগরিকের যে সকল তথ্য মজুদ থাকে তার প্রায় সকল কিছুই আইডই কার্ড অনুসন্ধানে বের করা সম্ভভ।

    কখন ভোটার তথ্য অনুসন্ধান করতে হয়?:

    দৈনন্দিন কাজে অনেক ক্ষেত্রেই ভোটার আইডি কার্ডের সত্যতা জানার জন্য তা অনুসন্ধান করার প্রয়োজন হয়।

    যে কোন ব্যাংক একাউন্ট খোলতে, পাসপোর্ট আবেদন করার ক্ষেত্রে বা সরকারি ও বেসরকারি অনেক কাজে আইডি কার্ডের সত্যতা যাচাই করনে আইডি কার্ড অনুসন্ধান করা হয়।

    জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করতে কি কি প্রয়োজন?:

    অনলাইনে একজন ব্যক্তির পরিচয় অনুসন্ধান করা একেবারে সহজ কাজ।

    শুধু জাতীয় পরিচয়পত্র নাম্বার এবং জন্ম তারিখ হলেই জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করে ফেলা যায়।

    জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান SMS কোড কি?:

    SMS এর মাধ্যমে জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করতে হলে মোবাইলের মেসেজ অপশনে যান।

    টাইপ করুন NID xxxxxxxxxx 30-01-1998 এবং এই ফরমেটে মেসেজ লিখে ১০৫ নাম্বারে সেন্ড করুন। xxxxxxx দিয়ে NID card নাম্বার 30-01-1998 দিয়ে জন্ম তারিখের ফরমেট বুঝানো হয়েছে।

    আপনাদের এই সুবিধার্থে এটা বোঝানো হয়েছে যেন আপনারা বুঝতে পারেনl

    উপসংহার:

    উপরোক্ত আলোচনা থেকে আমরা জানতে পারলাম যে জাতীয় পরিচয় পত্র কিভাবে সাবধান করবl

    এই ব্যাপারে আপনাদের মাঝে তুলে ধরেছি যদি কোন প্রকার ভুল হয়ে থাকে তাহলে আপনারা ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেনl

    এই বলে আমি আজকের আলোচনা শেষ করলাম সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন এটাই কামনা করিl

5 thoughts on “জাতীয় পরিচয় পত্র অনুসন্ধান করা”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *