ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন? 2024

Rate this post

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?
ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?

সূচনা;

 

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন? গুগলে সার্চ করার আগে তার টাইমলাইনে এই ধরনের এড আসতো না। ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?

যার সাথে ঘটা ঘটনা আমাদের সকলের সাথেই কম বেশি হয়। একটু ভালো করে চোখ কান খোলা রাখলে টের পাবেন ।

ডিজিটাল মার্কেটিং।  ডিজিটাল মার্কেটার বার বার রিসার্চ করে কে টার্গেট করেছে। তার ফলে তার টাইমলাইনে তারা এই ধরণের এড নিয়ে আসতে সফল হয়েছে।

আজকের পোস্টে আমরা আলোচনা করবো ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে। আজকের পোস্টে আমরা জানবো- ডিজিটাল মার্কেটিং করে যেভাবে অনলাইনের মাধ্যমে আয় করা যায় সে ব্যাপারে আপনাদের মাঝে তুলে ধরতে চাই নিম্নের সম্পর্কে আলোচনা করা হলো:

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?:

 

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন? মোবাইল ফোন, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে কনজিউমারের কাছে পন্যের জানান দেওয়ার একটি পন্থা।

মার্কেটিং এর কাজ মূলত মানুষের নিকট পন্য সঠিক সময়ে পৌঁছে দেয়া বা জানান দেয়া। বর্তমানে  বেশিরভাগ সময় ব্যয় করে থাকে অনলাইনে।

সময়ে তার স্থায়ীত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েক গুন। এই বিশাল পরিমানের অডিয়েন্সের সামনে আপনার পন্য সম্পর্কে তুলে ধরার সহজ এবং কার্যকরী পদ্ধতি হচ্ছে ডিজিটাল মার্কেটিং।

অনেক বেশি স্পেসিফিক এবং যেসকল মানুষ শুধু ঐ নির্দিষ্ট প্রোডাক্ট চান তাদের কাছেই মার্কেটিং করা যায়। যা প্রচলিত মার্কেটে সম্ভব নয়।

প্রোডাক্টের মার্কেটিং করতে গেলে ব্যবহার করতে হয় প্রিন্ট এড, ফোন কমুউনিকেশন, ফিজিক্যাল মার্কেটিং। তাও খুব সহজে মানুষের নিকট রিচ করা যায় না যতটা যায় অনলাইনের মাধ্যম।  এর আরো বড় ধরনের সমস্যা হচ্ছে এটাতে প্রচুর পরিমানে টাকা ব্যয় হয়।

এক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিং যেন একটি ত্রাতা হয়ে আসলো।  সহজে যদি কেউ তার টার্গেটেড অডিয়েন্সের নিকট পৌছাতে চান, ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিকল্প নেই তাহলে।

মিডিয়া ব্যবহার করে অডিয়েন্সের ইন্টারেস্ট অনুযায়ী এড শো করানো যায়, যেটি ফিজিক্যাল মার্কেটিং এ করা অসম্ভবপর। আর যদিও করা যায় তাও অত্যাধিক ব্যয় বহুল।

ফিজিক্যাল মার্কেটিং করতে গেলে দেখা যায় একসাথে অনেক গুলো  সামনে কোন একটা এড শো করানো হচ্ছে বা প্রিন্টিং এড দিয়ে দেয়া হচ্ছে। যায় যে, উপস্থিত সকলে কিন্তু এই প্রোডাক্টটি সম্পর্কে সমান আগ্রহ দেখায় না।  আশাও করা যায় না। এক্ষেত্রে হয় কি, যাদের প্রোডাকটি সম্পর্কে কৌতুহল রয়েছে তারাই  প্রোডাক্টিভ মার্কেটিং এর আওতায় পড়েন।

 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর ধরণ:

 

আরো দেখুন:

পড়াশোনার পাশাপাশি কী করা উচিত

ঘরে বসে আয় করার ১০টি উপায়

টাকা উপার্জন

 

অনলাইন মার্কেটিং

  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন
  •  সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং
  •  কন্টেন্ট মার্কেটিং
  • সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং

অফলাইন মার্কেটিং

  • রেডিও মার্কেটিং
  • টেলিভিশন মার্কেটিং

আমরা উপরে উল্লেখিত মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত ধারণ নিবো। শুরুতে জানা যাক   এর ক্যাটাগরি সম্পর্কে।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন:

 

সবচেয়ে বেশি ট্রাফিক জেনারেট করতে পারে সার্চ ইঞ্জিন। এবং সবচেয়ে জনপ্রিয় মার্কেটিং স্ট্রাটেজি হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন

এক কথায় যদি এসইও সম্পর্কে বলি তাহলে কথা টা এমন দাঁড়ায় যে – ওয়েবসাইটকে এমন ভাবে সাজানো, যার মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন গুলো জানতে পারে আপনার কন্টেন্টে কি রয়েছে এবং যারা সার্চ করছেন তাদের কি-ওয়ার্ড এর সাথে ম্যাচ করে সাইট কে অপটিমাইজ করাই  সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন।

 

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং:

গুগলে যখন সার্চ করি তখন দুই ধরনের রেজাল্ট আসে। যেগুলো পেইড সেগুলো ছোট্ট করে  লেখাটা লেখা থাকে।

আর যেগুলো আনপেইড সেটি এসইও এর আওতায় পড়ে। এভাবে করা হয় এ সম্পর্কে আলোচনার মাধ্যমে দিয়ে আমরা শিখতে পারিl

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?

 

সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং:

 

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে জনপ্রিয় দিক হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। কারণ বর্তমান সময়ে মানুষ সবচেয়ে বেশি সময় ব্যয় করেন সোস্যাল মিডিয়াতে।

সেলারদের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত স্থান হচ্ছে সোস্যাল মিডিয়া, ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম ইত্যাদি।

খুব কম খরচে টার্গেটেড অডিয়েন্সের কাছে পৌছানোর সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হচ্ছে সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটিং।

 

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং:

 

অন্যকে রেফার করার মাধ্যমে যে মার্কেটিং পদ্ধতি গড়ে উঠেছে সেটিই  । এখানে যারা এফিলিয়েট মার্কেটিং করে থাকেন তাদের নিজেদের কোন প্রোডাক্ট থাকে না।

ব্যাকলিংক এর মাধ্যমে ট্রাফিক জেনারেট করে দেয়ার এই মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজিটির ইভল্ভ হয়েছে।

এফিলিয়েট মার্কেটিং ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে সবচেয়ে আলোচিত এবং কার্যকরী মাধ্যম গুলোর একটি।

 

টেলিভিশন মার্কেটিং :

 

টার্গেটেড অডিয়েন্স রিচের ব্যাপারে টেলিভিশন মার্কেটিং অনেক পিছিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যান্য দিক এর তুলনায়।

কারন টেলিভিশনে যে এড শো করানো হয় তা আসলে সবাইকে উদ্দেশ্য করে দেয়া হয়।

কিন্তু ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যন্য সেক্টর গুলোতে মানুষের ইন্টারেস্ট এবং সার্ফিং এর ধরণ অনুযায়ী এড শো করা হয়।

সে ক্ষেত্রে টিভি মার্কেটিং এ কিছুটা ভাটা নিশ্চই পড়েছে। কিন্তু তার পরেও মার্কেটিং এর হিউজ একটা শেয়ার ধরে ফেলেছে ।

ফোন মার্কেটিং :

এই প্যাকেজ এই টিউন ঐ প্রোডাক্ট ঐ কন্সার্ট এসবের সেসকল মেসেজ পাঠিয়ে অডিয়েন্সের কাছে রিচ করা হয় তাকেই মুলত সংক্ষেপে ফোন মার্কেটিং বলা যায়।

অনেক সময় দেখবেন কল করে বিভিন্ন কিছু চটকদার কথা শুনায়। তাদের এসব কার্যক্রমও ফোন মার্কেটিং এর আওতাভুক্ত। এছাড়া বিভিন্ন কুপন গিভওয়ে দিয়েও অনেক কম্পানি মার্কেটিং কার্যক্রম চালায়।

আমাদের আশা আছে এসব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করে আপনাদের নিয়ে যাবো অনেক অজানা  কাছে।

ডিজিটাল মার্কেটিং ক্যারিয়ার :

 

ক্যারিয়ার হিসেবে ডিজিটাল মার্কেটিং একটি সম্ভাবনাময় কাজের ক্ষেত্র প্রতিনিয়ত এই খাতের প্রয়োজনীয়তা বেড়ে চলেছে।

সম্ভাবনাময় কাজের ধরণ তেমনি চ্যালেঞ্জিং ও। আরো জেনে অবাক হবেন বিশ্বের অনেক নামি দামি বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ডিজিটাল মার্কেটিং এর উপর ডিগ্রি দেওয়া হচ্ছে।

অনেকে আছেন মাস্টার্স পড়ার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিষয়টি বেছে নেন।

কারণ হিসেবে দেখা যাচ্ছে, ভবিষ্যতে এর ব্যপক চাহিদা সৃষ্টি হবে এবং এখনো রয়েছে।

তরুনদের মধ্যে অনেকে ডিজিটাল মার্কেটিং কে ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে  করেন। কারণ হিসেবে বিশ্লেষণ করে দেখা যায় যে, এই সেক্টরটি তুলনামূল শিখা সহজ এবং চাহিদা সম্পন্ন।

এর অনেকগুলো দিক থাকার কারণে যে কেউ সহজে প্র্যাকটিস করা শুরু করে দিতে পারে।

 

ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন?

ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয়:

 

 

আমাদের পাশের দেশ ইন্ডিয়াতে ডিজিটাল মার্কেটারদের মান্থলি গড়ে 18_77 হাজার রুপি স্যালারি রয়েছে ।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সম্ভাবনার দ্বার বিশাল। আপনি চাইলে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন। কোন সংস্থার জন্য হয়ে কাজ করতে পারেন। কোন বড় মিডিয়ার জন্য কাজ করতে পারেন।

নির্বাচনি প্রচার করে আয় করতে পারেন। এটি একটি সম্ভাবনাময় খাত। এবারের মার্কিন নির্বাচনে আমরা দেখেছি সরাসরি প্রচারণার চেয়ে প্রেসিডেন্টরা সোসাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে বেশি টাকা খসিয়েছেন।

সামনে যুক্তরাষ্ট্র কে ফলো করে অনেক দেশ নির্বাচনী প্রচারণার জন্য সোসাল মিডিয়াকে ব্যবহার করলে নতুন একটি বিশাল সম্ভাবনাময় দিক উন্মোচিত হবে ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য।

আশা করি পাঠক আপনার সামনে সামান্য কিছু তথ্য তুলে ধরতে পেরেছি ডিজিটাল মার্কেটিং সম্পর্কে। আগামী পোস্ট গুলোতে নির্দিষ্ট টপিক নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

সেই পর্যন্ত ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

শেষ কথাঃ

আলোচনা থেকে জানতে পারলাম যে কিভাবে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং করে বিভিন্ন উপায় এর মাধ্যমে ইনকাম করতে পারি এই বিষয়ে আমরা জানতে পারলামl

এখান থেকে আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং করে লাখ লাখ টাকা ইনকাম করতে পারি তাই আপনারা বেকার বসে না থেকে অনলাইনের মাধ্যমে ইনকাম করতে শিখুন সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে আমি আজকে আমার ব্লকের কথা সমাপ্তি ঘোষনা করলামl

পরবর্তী নতুন নতুন রাইটিং নিয়ে আলোচনা করব ধন্যবাদ সবাইকেl

8 thoughts on “ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং কেন করবেন? 2024”

  1. чек-лист лучших хардкор сайто

    чек-лист лучших хардкор видео
    https://whynotqa.ru/category/russkoe-chastnoe-porno-na-dache50846515-02-2024.php
    https://whynotqa.ru/category/russkuyu-dvoynoe-proniknovenie-porno11122008-12-2023.php
    https://whynotqa.ru/category/porno-russkoe-prinuditelnoe-kuni44827804-02-2024.php
    https://whynotqa.ru/category/porno-russkoy-vzrosloy-blondinki16368017-12-2023.php
    https://whynotqa.ru/category/russkoe-porno-domashnih-maloletok6982830-11-2023.php

    чек-лист лучших хардкор сайт

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *