Life Story

ইতিহাস এর সবচেয়ে ভাগ্যবান নারী

Written by pro_noob

একটা মানুষ কতটুকু ভাগ্যবান হতে পারে? প্রতিটা মানুষ নিজের জীবনে অনেক ঘটনা কে ভাগ্যর সাথে তুলনা করে যেমন তার সাথে ভালো কিছু হলে সে ভাগ্যবান আর খারাপ কিছু হলে সে দূর ভাগ্যবান। কিন্তু একজন মহিলা যখন টানা তিন বার ভয়াবহ জাহাজ দূরঘটনার শিকার হয় তবুও নিজের জীবন বাচাতে সক্ষম হয় তাকে আপনারা কি ভাগ্যবতী বলবেন?
ভায়োলেট জোসেপ জন্ম ১৮৮৭ সালে আর্জেন্টিনায়। ছোট বেলায় জোসেপ নিজেকে প্রথমবার ভাগ্যবতী প্রমান করে মরনব্যধি থেকে নিজেকে সারিয়ে তোলে। তার ফুসফুস এ ব্যাকটেরিয়ার আঘাতে যক্ষা হয়। তখন এর সময় যক্ষার কোন চিকিৎসা ছিলোনা তাই ডাক্তার তাকে বেচে থাকার জন্য মাত্র কিছু দিন দিয়েছিলো। কিন্তু ভাগ্যক্রমে সে ওই যাত্রায় বেচে যায়।


১৯১১ সালে প্রথমবার জাহাজ এর যাত্রিসেবিকা হিসেবে আর এম এস অলেম্পিক এ কাজ নেয় যেটা ওই সময়ের সবচেয়ে বড় জাহাজ ছিলো। যাত্রাপথে কিছু দূর যাওয়ার পর জাহাজ টি অন্য এক জাহাজ এর সাথে ধাক্কা খায় কিন্তু জাহাজ টি খুব কস্টে কোন ক্ষয়ক্ষতি ছাড়া ঘাট এ ফিরতে সক্ষম হয়। জোসেপ এই ঘটনা কে খারাপ শপ্ন ভেবে ভুলে যায় এবং চাকরি ছেড়ে অন্য জাহাজ এ চলে যায়।


১৯১২ সালে জোসেপ একটি নতুন জাহাজ এর যাত্রিসেবিকা হিসেবে কাজ নেয় কিন্তু দুর ভাগ্য ক্রমে সেটি ছিলো আর এম এস টাইটানিক। যেটি যাত্রা শুরু করার ঠিক ৪ দিনের মাথায় বরফ পিন্ডের সাথে ধাক্কা খেয়ে ডুবে যায়। যেহেতু জোসেফ একজন যাত্রিসেবিকা ছিলো তাই যাত্রিদের নিরাপদে পৌছে দেয়া ছিলো তার কাজ, জাহাজ এ লাইফ জ্যাকেট এর অভাব থাকায় নিজের সাথে কোন লাইফ জ্যাকেট নিতে পারে নি এবং বোট নাম্বার ১৬ তে বসে পরে। অবশেষে বোট থেকে আর এম এস কারপাথিয়া নামক জাহাজ এ চড়ে নিজের জীবন বাচাতে সক্ষন হয় জোসেফ।


প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় জোসেফ ব্রিটিশ রেড ক্রস এ সেবা প্রদান এর কাজ এ নিয়োজিত ছিলো এবং তাকে ব্রিটেনিকা নামক জাহাজ এ যাত্রি দের সেবা দেয়ার কাজে পাঠানো হয়। যাত্রার কিছুদুর যাওয়ার পর এটি এজিয়ান সমুদ্রে ডুবে যায়। প্রায় ৩০ জন মানুষ প্রান হারায় এ দূরঘটনায়। জোসেফ নিজের জীবন বাচাতে সমুদ্রে ঝাপ দেয় এবং এর ফলে মাথায় আঘাত পায়। অনেক বোর্ড এর সদস্যরা মারা গেলেও জোসেপ বেচে যায়।


এত কিছুর পর ও যাত্রিসেবিকার পেশা তিনি ছাড়েননি ১৯২০ সালে আবার নতুন করে এই পেশায় ফিরে আসে জোসেফ , উপাধি পায় মিস আনসিকিনেবল হিসেবে।
১৯৭১ সালে ৮৩ বছর বয়সে মৃত্যুমৃত্যুবরণ করেন এই সেবিকা।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments